SSC/এস এস সি পাসের পর কি নিয়ে পড়বো বা কি নিয়ে পড়া উচিৎ? বিজ্ঞান বিভাগ

 SSC/এস এস সি পাসের পর কি নিয়ে পড়বো বা কি নিয়ে পড়া উচিৎ? বিজ্ঞান বিভাগ

প্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা, এস এস সি পরীক্ষায় পাস করেছ তাই তোমাদের অভিনন্দন। রেজাল্ট পাওয়ার পর তোমাদের মাথায় প্রথম যে প্রশ্নটি আসে তা হল,“এখন কোথায় ও কি নিয়ে পড়বো?”

আসলে এটা তোমার একান্ত ব্যাক্তিগত সিদ্ধান্ত। তবে তোমার যদি শিক্ষার পরবর্তী ধাপ সর্ম্পকে ভালো ধারনা না থাকে তবে তোমার সিদ্ধান্ত গ্রহনে ভুল হতে পারে। তাই আজকের এই পোস্টটি শুধুই তোমার জন্য।

শিক্ষার পরবর্তী ধাপ সমুহঃ

১. এইচ এস সি

২. ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং

৩. নার্সিং ও প্যারামেডিকেল

১. এইচ এস সিঃ

আমি তোমার বিভাগ( মানবিক, বিজ্ঞান ও বানিজ্য) অনুযায়ী বর্ননা করছি।

বিজ্ঞান বিভাগঃ

তোমার রেজাল্ট যদি A+ বা A গ্রেড হয়ে থাকে আর যদি তুমি ডাক্তার,ইঞ্জিনিয়ার, বিমান বাহিনী, নৌ-বাহিনী বা নৌ-কর্মকার্তা, বিসিএস ক্যাডার, গবেষনা কর্মকর্তা হতে চাও তবে অবশ্যই এইচ এস সি করতে হবে । তোমার লক্ষ্য যেন হয় এই রেজাল্টাই ধরে রাখা। কারন বর্তমানে সব বিষয়েই কম্পিটিশন একটু বেশী।

  যাদের রেজাল্ট একটু কম অর্থাৎ A- তাদের বলবো, যদি তোমার মনে হয় যে এইচ এস সি-তে তুমি A+ করতে পারবে তাহলেই কেবল বিজ্ঞান বিভাগ নিয়ে পড়িবা। এটা একান্তই আমার ব্যাক্তিগত মতামত । শুধুমাত্র ডাক্তার বা ইঞ্জিনিয়ার হওয়ার জন্যই যে কেবল বিজ্ঞান বিভাগে পড়তে হবে এমনটি নয়। আসলে পরবর্তী পড়াশোনা বা ভালো কলেজে এডমিশন নেওয়া তোমার জন্য কঠিন হয়ে যাবে। যেমনঃ SSC ও HSC মিলে মোট ৮ পয়েন্ট না থাকলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি আবেদন পুরোন করা যায় না। এখন তুমি ভাব, HSC পরীক্ষায় তুমি কি 4.50 আনতে পারবা? যদি পার তাহলে তো ঠিকই আছে। কিন্তু যদি না পার তাহলে কিন্তু তোমাকেই আপসোস করতে হবে। এখন তোমার মনে প্রশ্ন জাগতে পারে “অন্য কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হবো।” তবে তোমাকে বলে রাখি সকল বিশ্ববিদ্যালয়েই একটি পয়েন্ট রিক্যুমেন্ট করে রাখে । তোমাকে তাদের রেক্যুমেশন বা শর্ত পুরন করেই তাদের প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হতে হবে।

যাদের রেজাল্ট 3.50 এর কম তাদের প্রতি পরামর্শ হল তোমরা তোমাদের বিভাগ পরিবর্তন কর। বানিজ্য বিভাগ বা মানবিক বিভাগে ভর্তি হলে তোমার রেজাল্ট আরো ভালো হওয়ার সম্ভবনা থাকবে।

২. ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং

তোমাদের বলে রাখা ভালো বর্তমানে চাকুরীর ক্ষেত্রে কারিগরি শিক্ষার মান সবচেয়ে বেশী। চাকুরীর এই প্রতিযোগীতার সময় ডিপ্লোমা করা ছাত্ররা তুলনামুলক সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছে। তাই আমি মনে করি ডিপ্লোমা করা তোমার জন্য যুগপোযগী সিদ্ধান্তই হবে।

৩. নাসিং ও প্যারামেডিকেল

আসলে নাসিং- মেয়েরা অনেক এগিয়ে থাকবে। তবে ছেলেরাও যে নাসিং-এ নিজেদের জায়গা  তৈরি করছে তা বলার আর অপেক্ষ রাখেনা। যারা সেবা কাজকে নিজেদের প্রফেসন হিসেবে গ্রহন করতে চাও, তারা নাসিং-এ ভর্তি হও। এখানে বলে রাখা ভালো এই পেশায় কাজের ক্ষেত্র সবচেয়ে বেশী।

বিঃদ্রঃ যাদের শারীরিক গঠন ভালো তারা সেনাবাহিনীতে যোগদান করলে বেশী ভালো হবে।


Post a Comment (0)
Previous Post Next Post